এমন একটি শব্দ বলুন যা শুরু হয়েছে “F” দিয়ে এবং শেষ হয়েছে (UCK) দিয়ে! অদ্ভুত প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছে ঢাকার মেয়েরা

এমন কি একটি শব্দ বলুন যা শুরু হয়েছে “F” দিয়ে এবং শেষ হয়েছে (UCK) দিয়ে! অদ্ভুত প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছে ঢাকার মেয়েরা। না দেখলে চরম মিস করবেন। ডার্টি মাইন্ড টেস্ট… Continue reading “এমন একটি শব্দ বলুন যা শুরু হয়েছে “F” দিয়ে এবং শেষ হয়েছে (UCK) দিয়ে! অদ্ভুত প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছে ঢাকার মেয়েরা”

অদ্ভুত কিছু গাড়ির ছবি! যা দেখলে আপনার মনে হবে গাড়িগুলা এখনি কিনে ফেলি

অদ্ভুত কিছু গাড়ির ছবি! যা দেখলে আপনার মনে হবে গাড়িগুলা এখনি কিনে ফেলি

১. যে হাসি দিছে! তাতে মনে হইতাছে প্রত্যেকদিন কোলগেট দিয়া দাত ব্রাশ করে

২. ভাল্লুকও আজ গাড়িতে পরিনত হইয়া গেছে

৩. সাদা কালা দুই জময ভাই

৪. অস্থির ভুট্টো গাড়ি

৫. এইটা মনে হয় কাঠাল

৬. অস্থির ব্যাবস্থা

৭. এইডা আসলে কি আমি বুঝতেছিনা! আপনারা বুঝলে জানাইয়েন

৮. গাড়ি নাকি ফেরীওয়ালা

৯. আপেল গাড়ি

১০. যে হা করছে! কারে যে খায়

আমাদের সাথেই থাকুন। আরো অদ্ভুত কিছু গাড়ি নিয়ে হাজির হবো আবার ইনশাল্লাহ্‌।

রমজান মাসের ১০ টি গুরত্বপুর্ন আমল ও এ সম্পর্কে হাদিস! রোজাদার ভাই-বোনদের যা না জানলেই নয়

রমজান মাসের ফযিলতের অভাব নেই। কোরআন শরীফ এবং হাদিস শরীফে রমজান নিয়ে অনেক কথাই আছে। মাহে রমজানে আমল করলে আল্লাহ তায়ালা অধিক সাওয়াব দেবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন পবিত্র কোরআন মজিদে । মুমিনদের জন্য এটা নেক আমল করার উত্তম সময়।

১। রোযা রাখা সম্পর্কে হাদিসঃ রমজানের দিনের বেলার বিশেষ ফরজ আমল হল সওম বা রোজা। রোজা জীবনের সকল গুনাহ মুছে দেয়। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, ‘‘যে ব্যক্তি ঈমানের সঙ্গে সওয়াবের আশায় রমজানের রোজা ও তারাবিহ আদায় করবে, সে ওই দিনের মতো নিষ্পাপ হয়ে যাবে যেদিন তার মা তাকে জন্ম দিয়েছিল।” (সহিহ ইবনে খুযাইমা, হাদিস: ২২০১।)

২। ২০ রাকাত তারাবী সম্পর্কে হাদিসঃ রমজানের রাতের বিশেষ আমল হল কিয়ামে রমজান তথা তারাবিহের নামাজ। এটি আল্লাহ তা’আলার অফুরন্ত রহমত ও মাগফিরাত লাভের অন্যতম উপায়। নবী কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘‘যে ব্যক্তি বিশ্বাসের সাথে সওয়াবের আশায় রমজানের রাতে তারাবিহ আদায় করে তার পূর্ববর্তী গুনাহসমূহ ক্ষমা করে দেয়া হয়।” (সহিহ বুখারি, হাদিস: ৩৭।)

৩। কোরআন মাজিদ তেলাওয়াত সম্পর্কেঃ এ মাসে অধিক পরিমাণে তেলাওয়াত করা উচিত। কারণ এ মাসের সঙ্গে কুরআনের সম্পর্ক অনেক গভীর। এ মাসেই কুরআন নাজিল হয়েছে। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এ মাসে অনেক বেশি তেলাওয়াত করতেন। হাদিস শরিফে এসেছে, “হযরত জিবরাঈল (আ.) রমজানের প্রতি রাতে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কাছে আসতেন এবং তারা একে অপরকে কুরআন তেলাওয়াত করে শোনাতেন। (সহিহ বুখারি, হাদিস: ৬।)

৪। সর্বাধিক হাদিস বর্ণনাকারী সাহাবী হযরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে এ সম্পর্কে আরেকটি বর্ণনা এসেছে। তিনি বলেছেন, হুজুর (সা.) এরশাদ করেছেন, অনেক রোজাদার ব্যক্তি এমন রয়েছে যাদের রোজার বিনিময়ে অনাহারে থাকা ব্যতিত আর কিছুই লাভ হয় না। আবার অনেক রাত জাগরণকারী এমন রয়েছে যাদের রাত জাগার কষ্ট ছাড়া আর কিছুই লাভ হয় না। (নেক আমল যদি এখলাস ও আন্তরিকতার সঙ্গে না হয়ে লোক দেখানোর উদ্দেশে হয় তাহলে এর বিনিময়ে কোনো সওয়াব পাওয়া যায় না)। (ইবনে মাজাহ, নাসাঈ)

৫। অধিক পরিমাণে দু’আ করা সম্পর্কেঃ রমজান দু’আ কবুলের মাস। নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, রোজাদারের দু’আ ফিরিয়ে দেয়া হয় না। মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা, হাদিস: ৮৯৯৫।
সুতরাং এ মাসের রহমত, বরকত, মাগফিরাত, জাহান্নাম থেকে মুক্তি ও জান্নাত লাভের জন্য এবং পার্থিব বৈধ প্রয়োজনাদির জন্যও আল্লাহ তা’আলার কাছে বেশি বেশি দু’আ করা একান্ত কাম্য।

৬। তাওবা ও ইস্তেগফার করা সম্পর্কেঃ রমজান মুমিনের জন্য ক্ষমার সুসংবাদ নিয়ে আসে। যে ব্যক্তি রমজান পেয়েও নিজের গুনাহসমূহ মাফ করাতে পারল না তার ওপর জিবরাঈল আ. ও দয়ার নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম অভিশাপ করেছেন। তাই জীবনের কৃত গুনাহের কথা স্মরণ করে বেশি বেশি তাওবা ইস্তগফার করা এবং আল্লাহ তা’আলার দরবারে ক্ষমা মন্জুর করিয়ে নেয়ার এটিই উত্তম সময়। বিশেষ করে ইফতার ও তাহাজ্জুদের সময় আল্লাহ তা’আলার দরবারে অধিক হারে ক্ষমা চাওয়া ও তাওবা করা উচিত।

নবীর প্রিয় সাহাবী হযরত আবু ওবায়দা (রা.) রমজানের গুরুত্ব সম্পর্কে আরেকটি হাদিস বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেন, হুজুর (সা.) এরশাদ করেছেন, রোজা মানুষের জন্য ঢালস্বরুপ যতক্ষণ পর্যন্ত তা ফেড়ে না ফেলা হয় (অর্থাৎ রোজা মানুষের জন্য জাহান্নাম থেকে মুক্তির কারণ হবে যতক্ষণ পর্যন্ত তা নিয়ম অনুযায়ী পালন করা হয়)। (ইবনে মাজাহ, নাসাঈ)

৭। দান-সদকা করা সম্পর্কেঃ দান-সদকা সর্বাবস্থায় উৎকৃষ্ট আমল। তবে রমজানে তার গুরুত্ব ও ফজিলত আরো বেড়ে যায়। হাদিস শরিফে আছে, “রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সকল মানুষের চেয়ে অধিক দানশীল ছিলেন। রমজান মাসে তাঁর দানের হস্ত আরো বেশি প্রসারিত হতো।” (সহিহ বুখারি, হাদিস: ১৯০২।)

৮। রোজাদারকে ইফতার করানো সম্পর্কেঃ রোজাদারকে ইফতার করানোও অনেক বড় ফজিলতপূর্ণ আমল। রাসুলুল্লাল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, “যে ব্যক্তি কোনো রোজাদারকে ইফতার করাবে সে ওই রোজাদারের অনুরূপ সওয়াব লাভ করবে। তবে রোজাদারের সওয়াব সামান্য পরিমাণও হ্রাস করা হবে না।” (জামে তিরমিজি, হাদিস: ৮০৭)
৯। লায়লাতুল কদর সম্পর্কে একটি আয়াতঃ “লাইলাতুল কদর হাজার মাস অপেক্ষা উত্তম। এ রাতে ফেরেশতাগণ ও রুহ জিবরাইল (আঃ) পৃথিবীতে অবতারণ করেন তাদের পালনকর্তার আদেশক্রমে সকল কল্যাণময় বস্তু নিয়ে। যে রাত পুরোটাই শান্তি, যা সুবহে সাদিক পর্যন্ত অব্যহত থাকে। (সূরা কদর, আয়াতঃ ৩-৫)।

১০। এ মাসে জান্নাতের দরজা খুলে দেওয়া হয়ঃ মুমিন বান্দাগণ যাতে রমযানের সকল কল্যাণ লাভ করতে পারে এবং সকল নেককাজে পূর্ণ উৎসাহ -উদ্দীপনার সঙ্গে সহজেই অংশগ্রহন করতে পারে এজন্য পুরো রমযান শয়তানকে শৃঙ্খলাদ্ধ করে রাখা হয়। আর সুসংবাদ হিসাবে জান্নাতের দরজাসমূহ খুলে দেওয়া হয় এবং জাহান্নামের দরজাসমূহ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

হযরত আবু হোরায়রা (রাঃ) হতে বর্ণিত,রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এরশাদ করেন – “রমযান মাসের শুভাগমন উপলক্ষে জান্নাতের দরজাসমূহ উন্মুক্ত করে দেওয়া হয় এবং জাহান্নামের দরজাগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়। [সহীহ বুখারী, হাদীস -১৮৯৮ (১/২৫৫), সহীহ মুসলিম, হাদীস – ১০৭৯ (১/৩৪৬) ]

কোন ভুল ত্রুটি হলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন! এবং অবশ্যই জানাবেন।

নির্মম কিছু ছবির মর্মান্তিক ইতিহাস! যা জানলে আপনার বিবেকেও নাড়া দিবে

নির্মম কিছু ছবির মর্মান্তিক ইতিহাস! যা জানলে আপনার বিবেকেও নাড়া দিবে। ছবিগুলোর ব্যাখ্যা খুবই হৃদয়বিদারক। চলুন তাহলে জেনে নেই।

১। ছবিটা বাংলাদেশের, রানা প্লাজা ধ্বংসের পরে উদ্ধার করতে গিয়ে এই ছবিটা তোলা হয়। জানা গেছে একজন আরেকজনকে আঘাত থেকে গিয়ে এবং জীবনের শেষ সময় জেনে নিজেদেরকে জড়িয়ে ধরে চলে গেছে পৃথিবীর বুক থেকে।

২। চীনে এক মাদকাশক্ত বাবাকে টেনে নিয়ে যাচ্ছে তার সন্তান

৩। আফ্রিকায় দুর্ভিক্ষ চলা কালিন এক ক্ষুদার্থ বালকের হাত ধরে আছে এক খ্রিষ্টান পর্যটক।

৪। নয়া দিল্লিতে কোন এক বছর ঈদের সময় ক্ষুদার্থ মানুষদের কে রুটি ও মাংস বিতরন করা হচ্ছে।

৫। দীর্ঘ ২৩ ঘন্টা অপারেশন করে এই ডাক্তার সাহেব রোগীটির হার্ট পরিবর্তন করেছিলেন। এ দীর্ঘ সময়ে একজন ঘুমিয়ে পড়েছে। কিন্তু ডাক্তার ঘুমায়নি।

৬। এই যুবক ভাইটি মাত্র সংবাদ পেলেন তার ভাই মারা গেছে। তার আর্তনাদ দেখে পাশে দাঁড়িয়ে থাকা লোকটি তার আবেগ লুকাতে পারেনি ক্যামেরা থেকে।

৭। ২০১১ সালে মিশরের রাজধানী কায়রোতে উত্তপ্ত রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে একদল খ্রিষ্টান মুসলিমদের নামাজের জায়গা কে ঘিরে রেখেছে যাতে সেখানে নামাজীদের কোন অসুবিধা না হয়।

৮। ২০০৯ সালে অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়াতে ভয়াবহ দাবানলে পুরে যাওয়া একটি বনে খোরগোশ কে পানি পান করাচ্ছে এক ব্যাক্তি

৯। দীর্ঘ ৯ মাস ইরাকে যুদ্ধ করে ফিরে এসে এক মা তার সন্তান কে জড়িয়ে ধরে কাঁদছে।

১০। মুম্বাই বিস্ফোরণে টনকে টন বোম সনাক্তকারী এই জাঞ্জির নামের কুকুরটি মানুষকে বাচিয়ে নিজে মরে যায়।

১১। ২০০১ সালে টুইনটাওয়ারে হামলার সময় ১০০ তালা থেকে লাফ দিয়ে বাচার চেষ্টার সময় ক্যামেরায় ধরা পরেন এই ব্যাক্তি। কিন্তু কোন লাভ হয় নাই। শেষ পর্যন্ত সে আর বাঁচতে পারে নাই।

১২। ২০০৭ সালে বাংলাদেশের পর ২০০৮ সালের মে মাসে মিয়ানমারের রাজধানীতে ঘুর্নিঝরে লণ্ডভণ্ড হয়ে যাওয়া বাড়িঘর সহ এক বালকের ছবি।

১৩। ১৯৪০ সালের পহেলা অক্টেবার, কানাডার নিয় ওয়েস্ট মিনিস্টারে যুদ্ধ ফেরত এক বাবার হাত ধরার চেষ্টা করছে এই শিশুটি

১৪। ২০১১ সালের মার্চ মাসে ভয়াবহ এক ভুমিকম্প ও সুনামিতে বা, মা, স্বামী, সন্তান সব হাড়িয়ে এক জাপানি নারীর আর্তনাদ

ছবিগুলো এবং এর পেছনের কাহিনীগুলো ভালো লাগলে আমাদেরকে কমেন্ট করে জানিয়ে দিন যাতে আমরা আরো ভালো ভালো কিচু জিনিস নিয়ে কাজ করতে পারি

ইসলাম অনুসারে কিভাবে রাত্রিযাপন করা উচিৎ? যা অনেকেই জানেনা, তবে প্রত্যেকেরই জানা উচিৎ

ইসলাম অনুসারে কিভাবে রাত্রিযাপন করা উচিৎ। একজন মুমিনের সকাল-সন্ধ্যা আল্লাহর জন্য নিবেদিত। তাঁর প্রতিটি মুহূর্ত অতিবাহিত হবে আল্লাহর স্মরণে, আল্লাহর বিধান Continue reading “ইসলাম অনুসারে কিভাবে রাত্রিযাপন করা উচিৎ? যা অনেকেই জানেনা, তবে প্রত্যেকেরই জানা উচিৎ”

ছবিগুলো দেখে হা করে তাকিয়ে থাকবেন!! অস্থির ১৫টি ছবির কালেকশন, যা আপনার মাথা ঘুরিয়ে দিবে

ছবিগুলো দেখে হা করে তাকিয়ে থাকবেন!! অস্থির কিছু ছবির কালেকশন। বিনোদনের জন্য মানুষ কত কিছুই না করে থাকে, ছবিগুলো তারই একাটি নিদর্শন। চলুন তাহলে দেখে Continue reading “ছবিগুলো দেখে হা করে তাকিয়ে থাকবেন!! অস্থির ১৫টি ছবির কালেকশন, যা আপনার মাথা ঘুরিয়ে দিবে”

স্রষ্টা বলতে কিছু নেই!! এক নাস্তিক খলিফা হারুনুর রশীদ কে চ্যালেঞ্জ করলো সে এটা প্রমান করে দেবে, তারপর যা হলো

স্রষ্টা বলতে কিছু নেই!! একবার খলিফা হারুনুর রশীদের নিকট এক নাস্তিক এসে বললেন যে আপনার সাম্রাজ্যে এমন কোন জ্ঞানী ব্যক্তিকে ডাকুন আমি তাকে তর্ক করে প্রমান করে দেব যে এই পৃথীবির কোন স্রষ্টা নেই। এগুলো নিজে নিজে সৃষ্টি হয়েছে এবং আপনা থেকেই চলে।

খলিফা হারুনুর রশীদের কিছুক্ষন ভেবে একটি চিরকুট মারাফত ইমাম আবু হানিফাকে ডাকলেন ও এই নাস্তিকের সাথে বিতর্কে অংশ নিতে অনুরোধ করলেন। ইমাম আবু হানিফা দুত মারাফত খবর পাঠালেন যে তিনি আগামীকাল যোহরের সময় আসবেন খলিফার প্রাসাদে নামায পড়ে তারপর বির্তকে অংশ নেবেন পরদিন যোহরের নামাযের সময়। খলিফা তার সভাসদ বর্গ ও নাস্তিক লোকটি অপেক্ষা করতে লাগল। কিন্তু যোহরের নামায তো দুরের কথা আসর শেয় হয়ে গেল তিনি মাগরিবের নামাযের সময় আসলেন।

নাস্তিকটি তার কাছে এত দেরীতে আসার কারন জনতে চাইল তিনি বললেন আমি দজলা নদীর ওপারে বাস করি। আমি খলীফার দাওয়াত পেয়ে নদীতে এসে দেখি কোন নৌকা নেই। অনেকক্ষন অপেক্ষা করেও কোন নৌকা পেলাম না। সহসা আমি দেখলাম একটি গাছ আপনা-আপনি উপরে পড়লো, তারপর সেটি চেরাই হয়ে নিজ থেকেই তক্তায় পরিনত হল। তারপর এটি নিজে নিজে একটি নৌকায় পরিনত হল। অত:পর আমি এটায় চড়ে বসলাম। নৌকাটি নিজে নিজে চলতে চলতে আমাকে এপারে পৌছিয়ে দিল।

নাস্তিকটি একথা শুনে হো হো করে হেসে ফেললো। তারপর বলল ইমাম সাহেব আমাকে কি বোকা পেয়েছেন যে আমি এমন গাজাখুরি গল্প বিশ্বাস করব। একটা গাছ আপনা থেকে নৌকায় পরিনত হবে, এটা কি করে সম্ভব?

ইমাম আবু হানিফা বললেন ওহে নাস্তিক সাহেব একটা গাছ যদি আপনা থেকে নৌকায় পরিনত না হতে পারে এবং নদী পরাপার না হতে পারে, তাহলে কিভাবে এই বিশাল আকাশ চন্দ্র সূর্য নক্ষত্র আপনা আপনি তৈরী হতে এবং চালু থাকতে পারে ??

নাস্তিকটি লা-জওয়াব হয়ে মুখ কাচুমাচু করে বিদায় নিল। খলিফা হারুনুর রশীদ তার তাৎক্ষনিক জবাবে মুগ্ধ হয়ে ইমাম সাহেব কে সসম্মানে বিদায় দিলেন। কোন তর্কে যাওয়ার আগেই নাস্তিকটি শোচনীয়ভাবে পরাজিত হয়ে গেল।

শিক্ষাঃ নাস্তিক ও খোদাদ্রোহীদের কোন যুক্তি থাকে না। বিচক্ষণতা ও সাহস নিয়ে তাদের মোকাবিলা করলেই তারা পরাজিত হতে বাধ্য। তবে এ যুগের নাস্তিক ও খোদাদ্রোহীরা যুক্তির অভাবে সন্ত্রাসের আশ্রয় নিয়ে অস্তিত্ব টিকিয়ে রেখেছে। তাদেরকে প্রতিহত করার জন্য মুসলমানদেরকে মাথা ঠান্ডা রেখে সুপরিকল্পিতভাবে শক্তি অর্জন করে জেহাদের জন্য প্রস্ততি নিতে হবে।

অদ্ভুত কিছু ছবি! যা প্রথমবার দেখলে আপনি ধোকা খেয়ে যেতে পারেন

অদ্ভুত কিছু ছবি! যা প্রথমবার দেখলে আপনি ধোকা খেয়ে যেতে পারেন। পৃথিবীতে মানুষের যে সখের কোন অভাব নেই, এই ছবিগুলো তার প্রমান।

১। দেখে মনে হচ্ছে বমি করছে

২। অনেক দূর থেকে তোলা ছবিটা

৩। পাহাড় মাথায় নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে

৪। মূর্তির সামনে ছবি

৫। অদ্ভুত পোষাক

৬। ছবি তুলতে গিয়ে পরে যাচ্ছিলো

৭। অদ্ভুত গাছ

জেনে নিন প্রিয় নবীজি রোজার আগে যা করতেন

গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির আগমনে মানুষের প্রস্তুতি হয় জাকজমক পূর্ণ। মাসাধিককাল পূর্বেই শুরু হয় প্রস্তুতি। পূর্ণ সময়ব্যাপী চলতে থাকে নানা আয়োজন। ব্যক্তি যত গুরুত্বপূর্ণ হন Continue reading “জেনে নিন প্রিয় নবীজি রোজার আগে যা করতেন”

রমজানে রোজা রাখার পূর্বে গর্ভবতী মায়েদের যা যা করণীয়, জেনে নিন ভিডিওসহ

রোজা এমন একটি আল্লাহ্‌’র নিয়ামত যা বছর ঘুরে মাত্র একবার আসে। গর্ভবতী একজন মা যিনি একজন মুসলমান। সারাবছর ধরে এই রোজার আশায় থাকে। অনেক কষ্ট করে Continue reading “রমজানে রোজা রাখার পূর্বে গর্ভবতী মায়েদের যা যা করণীয়, জেনে নিন ভিডিওসহ”