আল্লাহ ক্ষমা করো আমাদের দেখুন মৌলভীবাজারে বন্যায় কি ভয়াবহ অবস্থা(ভিডিও)

ভিডিওটি একদম নিচে। ভিডিওটি দেখতে একদম নিচে চলে যান। হে আল্লাহ এই বয়াবহ বন্যা থেকে মৌলভীবাজারের অসহায় মানুষদের রক্ষা করুন । ক্ষমা করে দিন আমাদের। Continue reading “আল্লাহ ক্ষমা করো আমাদের দেখুন মৌলভীবাজারে বন্যায় কি ভয়াবহ অবস্থা(ভিডিও)”

ইচ্ছা করে রোজা ভঙ্গ করলে কি কোন উপায় আছে ক্ষমা পাওয়ার???

ইচ্ছা করে যারা নানা অজুহাতে ও স্বেচ্ছায় পুরো মাহে রমজানের রোজা রাখে না, তাদের শাস্তি যে কতো কঠিন হবে তা আর বলার উপেক্ষা রাখে না। ইচ্ছা করে রোজা ভঙ্গ করলে ভয়ানক পরিণতি সম্পর্কে রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি মাহে রমজানের একদিনের রোজা কোনো ওজর বা অসুস্থতা ব্যতীত ভঙ্গ করবে, সারা জীবনের রোজাও এর ক্ষতিপূরণ হবে না, যদি সে সারা জীবনও রোজা রাখে।’ (বর্ণনায়: তিরমিজি, আবু দাউদ ও মুসনাদে আহমাদ)

imgur

রোজার ফিদ্ইয়াঃ

কারও পক্ষে রোজা রাখা দুঃসাধ্য হলে একটা রোজার পরিবর্তে একজন দরিদ্রকে খাবার দান করা কর্তব্য। শরিয়ত মোতাবেক রোজা পালনে অক্ষম বা সামর্থ্যহীন হলে প্রতিটি রোজার জন্য একটি করে ‘সাদাকাতুল ফিতর’-এর সমপরিমাণ গম বা তার মূল্য গরিবদের দান করাই হলো রোজার ‘ফিদ্ইয়া’ তথা বিনিময় বা মুক্তিপণ।

অতিশয় বৃদ্ধ বা গুরুতর রোগাক্রান্ত ব্যক্তি, যার সুস্থ হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই অথবা রোজা রাখলে প্রাণহানির আশঙ্কা থাকে, তারা রোজার বদলে ফিদ্ইয়া আদায় করবে। পরবর্তী সময়ে ওই ব্যক্তি যদি সুস্থ হয়ে রোজা রাখার মতো শক্তি ও সাহস পায়, তাহলে তার আগের রোজার কাজা আদায় করতে হবে। তখন আগে আদায়কৃত ফিদ্ইয়া সাদকা হিসেবে গণ্য হবে।

imgur

অসুস্থ ব্যক্তি ফিদ্ইয়া বা মুক্তিপণ আদায় না করে মারা গেলে তার পরিত্যক্ত সম্পদ থেকে ফিদ্ইয়া আদায় করা কর্তব্য; যদি মৃত ব্যক্তি অসিয়ত করে যায়। অন্যথায় আদায় করা মুস্তাহাব। উল্লেখ্য, প্রতিটি রোজার ফিদ্ইয়া হলো একটি সাদাকাতুল ফিতর দরিদ্র এতিম বা মিসকিনকে দান করা অথবা একজন ফকির বা গরিবকে দুই বেলা পেট পুরে খাওয়ানো। অনেক জায়গায় দেখা যায় গরিব লোক কোনো ধনীর বদলি রোজা পালন করে দিচ্ছে। কিন্তু এটা ভুল। কোনো অবস্থাতেই একজনের রোজা অন্যজন বদলি হিসেবে পালন করতে পারবে না। কেউ কারও রোজা বদলি হিসেবে রাখলে শরিয়তের দৃষ্টিতে তা শুদ্ধ হবে না।

রোজার ফিদ্ইয়া গুনাহমাফের মাধ্যমে মানুষকে নিষ্কলুষ ও নির্ভেজাল করে। বিনা কারণে যে ব্যক্তি একটি রোজা না রাখে এবং পরে যদি ওই রোজার পরিবর্তে সারা বছরও রোজা রাখে, তবু সে ততটুকু সওয়াব পাবে না, যতটুকু মাহে রমজানে ওই একটি রোজা পালনের কারণে পেত। এ সম্পর্কে ফিকহবিদদের মতানুসারে, দুই মাস একাধারে রোজা রাখলে স্বেচ্ছায় ভাঙা একটি রোজার কাফফারা আদায় হয়। এ কাফফারার বিনিময়ে একটি রোজার ফরজের দায়িত্বটাই কেবল আদায় হয়। ইসলামি শরিয়ত মোতাবেক ইচ্ছাকৃত রোজা না রাখলে যে কঠিন শাস্তির হুকুম এসেছে, সেই ব্যক্তি ইহকালে তা না পেলেও পরকালে জাহান্নামের দাউ দাউ অগ্নিকুণ্ডে তার শাস্তি হবে অত্যন্ত ভয়াবহ। তাই রমজান মাসে রোজার সংখ্যা পূরণ করাই অধিকতর শ্রেয় ও কল্যাণকর।

পাকিস্তানি “ইয়াং জেনারেশন” ক্ষমা চাইলো ১৯৭১ এর ঘটনার জন্য!! দেখুন বাংলাদেশ নিয়ে তাদের মন্তব্য কি (ভিডিওসহ)

পাকিস্তানি “ইয়াং জেনারেশন” ক্ষমা চাইলো ১৯৭১ এর ঘটনার জন্য!! তারা বলে, যখন এসব হয়েছে তখন তারা ছিলো না এবং এখন সত্যটা তারা জানে। যা হয়ে গেছে তা তো আর Continue reading “পাকিস্তানি “ইয়াং জেনারেশন” ক্ষমা চাইলো ১৯৭১ এর ঘটনার জন্য!! দেখুন বাংলাদেশ নিয়ে তাদের মন্তব্য কি (ভিডিওসহ)”

যুদ্ধের গোপনীয়তা ফাস করে দেওয়ার পরেও রাসূল (সাঃ) যাকে ক্ষমা করে দিলেন, জানুন কেন

যুদ্ধের গোপনীয়তা ফাস করে দেওয়ার পরেও রাসূল (সাঃ) যাকে ক্ষমা করে দিলেন। বিভিন্ন সহীহ রেওয়ায়াত থেকে জানা যায় যে, বদর যুদ্ধের পর মক্কা বিজয়ের কিছু আগে মক্কার Continue reading “যুদ্ধের গোপনীয়তা ফাস করে দেওয়ার পরেও রাসূল (সাঃ) যাকে ক্ষমা করে দিলেন, জানুন কেন”

হে আল্লাহ ক্ষমা করো আমাদের , হাতে এক মিনিট সময় থাকলে ভিডিওটি দেখুন

ভিডিওটি একদম নিচে,হে আল্লাহ ক্ষমা করো আমাদের ,ভিডিওটি দেখতে নিচে চলে যান , হাতে এক মিনিট সময় থাকলে ভিডিওটি দেখুন দু’দিনের এই দুনিয়ায় আমরা না জেনে না Continue reading “হে আল্লাহ ক্ষমা করো আমাদের , হাতে এক মিনিট সময় থাকলে ভিডিওটি দেখুন”

যে কারণে এক বেশ্যা বা ব্যভিচারী নারীকে ক্ষমা করেদেন আল্লাহ

একদিন একটি কুকুর (অস্থিরভাবে) চারদিকে ঘুরছিল। কুকুরটির পিপাসায় মরে যাবার উপক্রম হয়েছিল। এমন সময় বনী ইসরাইলের এক ব্যাভিচারী নারী তাকে দেখতে পেল। সে নিজের মোজা খুলে কুয়া থেকে পানি তুলে কুকুরটিকে পান করালো এবং এ জন্যে তাকে ক্ষমা করে দেয়া হলো (মুসলিম) Continue reading “যে কারণে এক বেশ্যা বা ব্যভিচারী নারীকে ক্ষমা করেদেন আল্লাহ”

পাপ থেকে ক্ষমা লাভের ছোট্ট আমল

আল্লাহ তাআলার গুণবাচক নামের অনেক ফজিলত ও উপকারিত রয়েছে। এ নামসমূহের আমলে চরম অপরাধীও তার অপরাধ তথা পাপ থেকে ক্ষমা লাভ করে। পাপ থেকে ক্ষমা লাভে আল্লাহ তাআলার গুণবাচক নাম (اَلْعَفُوُّ) ‘আল-আ’ফুউ’-এর আমল করা যায়।প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘আল্লাহ তাআলার ৯৯টি গুণবাচক নাম আছে। যে ব্যক্তি এ গুণবাচক নামগুলোর জিকির (আমল) করবে; সে জান্নাতে যাবে।’ জান্নাত পাওয়া ঘোষণা ছাড়াও রয়েছে অনেক ফজিলত।

আল্লাহ তাআলার গুণবাচক নাম সমূহের মধ্যে (اَلْعَفُوُّ) ‘আল-আ’ফুউ’একটি। এ গুণবাচক নামের আমলে আল্লাহ তাআলা চরম অপরাধীকেও ক্ষমা করেআল্লাহর গুণবাচক নাম (اَلْعَفُوُّ) ‘আল-আ’ফুউ’-এর জিকিরের আমল ও ফজিলত তুলে ধরা হল
উচ্চারণ : ‘আল-আ’ফউ’
অর্থ : ‘পাপসমূহ ক্ষমা বা মোচনকারী’
আল্লাহর ‍গুণবাচক নাম (اَلْمُنْتَقِمُ)-এর আমল
ফজিলত ও আমল
যে ব্যক্তি জীবনভর অত্যাধিক পাপ কাজে নিমজ্জিত ছিল; সে যদি আল্লাহ তাআলা এ গুণবাচক নাম (اَلْعَفُوُّ) ‘আল-আ’ফুউ’ নিয়মিত পাঠ করে; তবে আল্লাহ তাআলা ওই ব্যক্তির সব পাপ ক্ষমা করে দেবেন।আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে তাঁর প্রতিটি গুণবাচক নামের আমল করার তাওফিক দান করুন। পাপ থেকে মুক্তি লাভে এ ছোট্ট আমলটি নিয়মিত করার তাওফিক দান করুন। আমিন। দেন।