স্রষ্টা বলতে কিছু নেই!! এক নাস্তিক খলিফা হারুনুর রশীদ কে চ্যালেঞ্জ করলো সে এটা প্রমান করে দেবে, তারপর যা হলো

স্রষ্টা বলতে কিছু নেই!! একবার খলিফা হারুনুর রশীদের নিকট এক নাস্তিক এসে বললেন যে আপনার সাম্রাজ্যে এমন কোন জ্ঞানী ব্যক্তিকে ডাকুন আমি তাকে তর্ক করে প্রমান করে দেব যে এই পৃথীবির কোন স্রষ্টা নেই। এগুলো নিজে নিজে সৃষ্টি হয়েছে এবং আপনা থেকেই চলে।

খলিফা হারুনুর রশীদের কিছুক্ষন ভেবে একটি চিরকুট মারাফত ইমাম আবু হানিফাকে ডাকলেন ও এই নাস্তিকের সাথে বিতর্কে অংশ নিতে অনুরোধ করলেন। ইমাম আবু হানিফা দুত মারাফত খবর পাঠালেন যে তিনি আগামীকাল যোহরের সময় আসবেন খলিফার প্রাসাদে নামায পড়ে তারপর বির্তকে অংশ নেবেন পরদিন যোহরের নামাযের সময়। খলিফা তার সভাসদ বর্গ ও নাস্তিক লোকটি অপেক্ষা করতে লাগল। কিন্তু যোহরের নামায তো দুরের কথা আসর শেয় হয়ে গেল তিনি মাগরিবের নামাযের সময় আসলেন।

নাস্তিকটি তার কাছে এত দেরীতে আসার কারন জনতে চাইল তিনি বললেন আমি দজলা নদীর ওপারে বাস করি। আমি খলীফার দাওয়াত পেয়ে নদীতে এসে দেখি কোন নৌকা নেই। অনেকক্ষন অপেক্ষা করেও কোন নৌকা পেলাম না। সহসা আমি দেখলাম একটি গাছ আপনা-আপনি উপরে পড়লো, তারপর সেটি চেরাই হয়ে নিজ থেকেই তক্তায় পরিনত হল। তারপর এটি নিজে নিজে একটি নৌকায় পরিনত হল। অত:পর আমি এটায় চড়ে বসলাম। নৌকাটি নিজে নিজে চলতে চলতে আমাকে এপারে পৌছিয়ে দিল।

নাস্তিকটি একথা শুনে হো হো করে হেসে ফেললো। তারপর বলল ইমাম সাহেব আমাকে কি বোকা পেয়েছেন যে আমি এমন গাজাখুরি গল্প বিশ্বাস করব। একটা গাছ আপনা থেকে নৌকায় পরিনত হবে, এটা কি করে সম্ভব?

ইমাম আবু হানিফা বললেন ওহে নাস্তিক সাহেব একটা গাছ যদি আপনা থেকে নৌকায় পরিনত না হতে পারে এবং নদী পরাপার না হতে পারে, তাহলে কিভাবে এই বিশাল আকাশ চন্দ্র সূর্য নক্ষত্র আপনা আপনি তৈরী হতে এবং চালু থাকতে পারে ??

নাস্তিকটি লা-জওয়াব হয়ে মুখ কাচুমাচু করে বিদায় নিল। খলিফা হারুনুর রশীদ তার তাৎক্ষনিক জবাবে মুগ্ধ হয়ে ইমাম সাহেব কে সসম্মানে বিদায় দিলেন। কোন তর্কে যাওয়ার আগেই নাস্তিকটি শোচনীয়ভাবে পরাজিত হয়ে গেল।

শিক্ষাঃ নাস্তিক ও খোদাদ্রোহীদের কোন যুক্তি থাকে না। বিচক্ষণতা ও সাহস নিয়ে তাদের মোকাবিলা করলেই তারা পরাজিত হতে বাধ্য। তবে এ যুগের নাস্তিক ও খোদাদ্রোহীরা যুক্তির অভাবে সন্ত্রাসের আশ্রয় নিয়ে অস্তিত্ব টিকিয়ে রেখেছে। তাদেরকে প্রতিহত করার জন্য মুসলমানদেরকে মাথা ঠান্ডা রেখে সুপরিকল্পিতভাবে শক্তি অর্জন করে জেহাদের জন্য প্রস্ততি নিতে হবে।

আল্লাহ্‌ !! এটা কি দেখালে? মেয়েটি রুকু করলো একদিকে আর সেজদাহ্‌ করলো আরেক দিকে! এ কি মানুষ না অন্য কিছু

আল্লাহ্‌ !! এটা তুমি কি দেখালে? মেয়েটি রুকু করলো একদিকে আর সেজদাহ্‌ দিলো আরেক দিকে। উনি কি মানুষ না অন্য কিছু এটা নিয়ে শঙ্কা কাজ করছে। যদি সে মানুষ হয় Continue reading “আল্লাহ্‌ !! এটা কি দেখালে? মেয়েটি রুকু করলো একদিকে আর সেজদাহ্‌ করলো আরেক দিকে! এ কি মানুষ না অন্য কিছু”

এটা কোন মজার কাহিনী না !! এটা ইসলামের এক বীরের কাহিনী (খালিদ বিন ওয়ালিদ রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু)

ইসলামের এক বীর খালিদ বিন ওয়ালিদ রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু ইরামুকের যুদ্ধে ১০০ সৈন্য নিয়ে লক্ষাদিক সৈনের মাঝখানে গিয়ে সম্রাট হেরাক্লিয়াসের প্রধান সেনাপতি মাহান Continue reading “এটা কোন মজার কাহিনী না !! এটা ইসলামের এক বীরের কাহিনী (খালিদ বিন ওয়ালিদ রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু)”

বার বার যৌন মিলন করার আসক্তি কে কি কোন নেশার সাথে তূলনা করা যায়, নাকি এটা কোন অদৃশ্যমান ব্যাপার???

আমেরিকার লেখক মার্ক টোয়েন একবার বলেছিলেন, ধূমপান ছাড়া খুব সহজ, কারণ তিনি শ’খানেকবার ছেড়েছেন। তিনি মারা গিয়েছিলেন ফুসফুসের ক্যান্সারে। নিকোটিন, মদ বা Continue reading “বার বার যৌন মিলন করার আসক্তি কে কি কোন নেশার সাথে তূলনা করা যায়, নাকি এটা কোন অদৃশ্যমান ব্যাপার???”

এটা শিলাবৃষ্টি না আল্লাহর গজব !! দেখুন কি ভয়াবহ অবস্থা??(ভিডিও)

ভিডিওটিএকদম নিচে, এটা শিলাবৃষ্টি না আল্লাহর গজব !! দেখুন কি ভয়াবহ অবস্থা??(ভিডিও)
, ‘তোমরা ভেবে দেখো তো, যদি তোমাদের ওপর Continue reading “এটা শিলাবৃষ্টি না আল্লাহর গজব !! দেখুন কি ভয়াবহ অবস্থা??(ভিডিও)”

জোকসঃ যত বেশি ঘষবেন, এটা ততই বাড়বে।

ছোট্ট বাবুদের ক্লাসে ঢুকে মিস দেখলেন, বোর্ডে ক্ষুদে হরফে পুরুষদের বিশেষ প্রত্যঙ্গটির কথ্য নামটি লেখা।

ভীষণ চটে গিয়ে চেঁচিয়ে উঠলেন তিনি, ‘কে লিখেছে এটা?’
কেউ উত্তর দিলো না। মিস তড়িঘড়ি করে সেটা ডাস্টার দিয়ে ঘষে মুছে ফেললেন।

পরদিন আবার ক্লাসে একই কান্ড, এবার শব্দটি আরেকটু বড় হরফে লেখা। আবারও ক্ষেপলেন মিস, ‘কে লিখেছে এটা?’

কেউ উত্তর দিলো না। মিস আবার সেটা ডাস্টার দিয়ে ঘষে মুছে ফেললেন।

তার পরদিন আবারও একই কান্ড, এবার গোটা বোর্ড জুড়ে শব্দটি লেখা। মিস বহুকষ্টে মেজাজ ঠিক রেখে ডাস্টার ঘষে লেখাটা মুছলেন।

তার পরদিন ক্লাসে এসে মিস দেখলেন, বোর্ডে লেখা: যত বেশি ঘষবেন, এটা ততই বাড়বে।

**এক পাগলাগারদে ডাক্তার আর পাগলের কথোপকথন :

পাগলা গারদে এক পাগল ছাদের সাথে দড়ি লাগিয়ে ঝুলছিল………..

এটা দেখে ডাক্তার বললঃ ওই তুই ঝুলিস কেন ?

পাগলঃ আমি তো বাল্ব!

ডাক্তারঃ তাইলে জলিস না কেন??

পাগলঃ আরে পাগল তুই কোন দেশে আছিস এইটা বাংলাদেশ, কারেন্ট পামু কই???

**একদিন এক জেনারেল,এক ক্যাপ্টেন আর এক মেজর বসে বিভিন্ন ধরনের গল্প করছেন। কথায় কথায় সেক্সের কথা উঠে আসলো।
জেনারেল বল্লো জানকি আমার কাছে সেক্স মানে হচ্ছে ৮০%পরিশ্রম আর ২০% আনন্দ।
তারপর তিনি জিজ্ঞাসা করলেন বাদবাকিদের।
জবাবে ক্যাপ্টেন বল্লো আমার কাছে সেক্স মানে ৬০% পরিশ্রম আর ৪০%আনন্দ।
এবার মেজরের পালা-
আসলে মেজর বল্লেন আমার মতে সেক্স হচ্ছে ৫০% পরিশ্রম আর ৫০% আনন্দ।
ঠিক সেই সময় এক বাটলার ঢুকে পরলে জেনারেল বল্লো এই বলতো তোর কাছে সেক্স মানে কি?
জবাবে বাটলার বললো স্যার আমার কাছে সেক্স মানে ১০০% ই আনন্দ এতে কোন পরিশ্রমই নাই।
এর জবাব শুনে সবাই রেগে গিয়ে বল্লো এটা তোকে প্রমান করতে হবে না পারলে তোকে পানিশমেন্ট দেওয়া হবে। তখন বাটলার জবাবে বলে এতো খুবি সহজ স্যার কারন সেক্সে যদি কোন পরিশ্রম থাকতো তাহলে তা আপনারা আমাকে দিয়েই করাতেন।

বল্টুঃ স্যার আপনি আপনার স্ত্রীর লাভার (Lover) কে A গ্রেড দিলেন…… এটা না বৈধ না যুক্তিসংগত।

বল্টু পরিক্ষায় ফেল করলো, তো সে পাস করার একটা বুদ্ধি করলো। বল্টু সারের কাছে গিয়ে বললো, বল্টুঃ স্যার আপনি তো সব জানেন, তো আপনাকে একটা প্রশ্ন জিজ্ঞাস করবো, পারবেন? আর যদি উত্তর না দিতে পারেন তাহলে আমাকে A গ্রেড দিতে হবে!!! শিক্ষকঃ তুই আমাকে চ্যালেঞ্জ করছিস, ঠিক আছে জিজ্ঞেস কর। আমি রাজি….. বল্টুঃ কোনটা বৈধ, কিন্তু যুক্তিসংগত নয়? আবার যুক্তিসংগত কিন্তু বৈধ নয়? এবং না যুক্তিসংগত না বৈধ??? শিক্ষক পুরাই বলদ!!! উত্তর তো দূরের কথা প্রশ্নটাই প্রথম শুনছে। সুতরাং সে রাগে দুঃখে বল্টুকে A গ্রেড দিলো!!!! তারপর বল্টু উত্তর দিলোঃ . . . . স্যার আপনার বয়স ৫৩ আর আপনার স্ত্রীর ২৩….এটা বৈধ কিন্তু যুক্তিসংগত নয়….!!!!!আপনার স্ত্রীর ২৫ বছর বয়সী একটা বয়ফ্রেন্ড…. আছে এটা যুক্তিসংগত কিন্তু বৈধ নয়….!!!! আর এখন আপনি আপনার স্ত্রীর লাভার (Lover) কে A গ্রেড দিলেন……এটা না বৈধ না যুক্তিসংগত।
(স্যার অজ্ঞান).

বল্টু আর কুদ্দুস অফিস
শেষে ফ্ল্যাটে আসতেছে………!!!
বল্টুঃ- কি রে কুদ্দুস । লিফট বন্ধ ক্যান ?
কুদ্দুসঃ- মনে হয় লিফট নষ্ট হইছে ।
বল্টুঃ- হায় হায় ! এহন তাইলে ১৯০ তলায়উঠমু ক্যামনে ?
কুদ্দুসঃ- সমস্যা নাই । সিঁড়ি দিয়া উঠমু !
বল্টুঃ- আমি পারমু না ?
কুদ্দুসঃ- শোন , আমি একটা মজার কথা কমু আর সিঁড়ি দিয়া উপরে উঠতে থাকমু ।
আমার মজার কথা শেষ হইলে তুই একটা দুঃখের কথা বলবি । এইভাবে কথা কইতে কইতে আমরা ১৯০ তলায় উইঠা যামু ।
বল্টুঃ- আইচ্ছা ঠিক আছে ।(কুদ্দুসের মজার কথা শুরু)
কুদ্দুসঃ- (মজার কথা শেষ কইরা ) দেখছস আমরা এহন কথা কইতে কইতে ১৬০ তলায় আইসা পড়ছি । এহন তুই একটা দুঃখের কথা কইতে থাক ।
বল্টুঃ- দুঃখের কথা আর কি কমু , ফ্ল্যাটের চাবি তো গাড়িতে রাইখা আইছি ।
বল্টু Roczzzz কুদ্দুস Shokzzzz.