সাহাবী দের ঘটনা শুনলে সত্যি চোখে পানি এসে যায়

হযরত সাদ সালামি আল্লাহর নবীর একজন সাহাবী ছিলেন ।
তিনি অত্যন্ত গরীব সাহাবী ছিলেন।
গায়ের রং ছিল খুবই কালো এবং Continue reading “সাহাবী দের ঘটনা শুনলে সত্যি চোখে পানি এসে যায়”

সতী নারীর ইজ্জত হরনের চেষ্টা অত:পর যা ঘটল

বর্ণিত আছে যে, বনী ইসরাঈলের একজন বণিক লোক হজ্জ্বে যাওয়ার সময় তার স্ত্রীকে ভাইয়ের গৃহে রেখে যায় । ক’দিন পর সে মহিলাকে তার সাথে ব্যভিচারে লিপ্ত হওয়ার জন্য প্রস্তাব দেয়। মহিলা তার এ প্রস্তাবে অসম্মতি Continue reading “সতী নারীর ইজ্জত হরনের চেষ্টা অত:পর যা ঘটল”

মৃত সাগর সম্পর্কে হাদিসে আসা সেই বিস্ময়কর ঘটনা

কওমে লূত-এর বর্ণিত ধ্বংসস্থলটি বর্তমানে ‘বাহরে মাইয়েত’ বা ‘বাহরে লূত’ অর্থাৎ ‘মৃত সাগর’ বা ‘লূত সাগর’ নামে খ্যাত। যা ফিলিস্তীন ও জর্ডান নদীর মধ্যবর্তী অঞ্চলে বিশাল অঞ্চল জুড়ে নদীর রূপ ধারণ করে আছে। Continue reading “মৃত সাগর সম্পর্কে হাদিসে আসা সেই বিস্ময়কর ঘটনা”

সিংহাসনের উপরে একটি নিষ্প্রাণ দেহ প্রাপ্তির ঘটনা ও ইনশাআল্লাহ’ না বলার ফল

আল্লাহ বলেন- وَلَقَدْ فَتَنَّا سُلَيْمَانَ وَأَلْقَيْنَا عَلَى كُرْسِيِّهِ جَسَداً ثُمَّ أَنَابَ (ص ৩৪) ‘আমরা সুলায়মানকে পরীক্ষা করলাম এবং রেখে দিলাম তার সিংহাসনের উপর একটি নিষ্প্রাণ দেহ। অতঃপর সে রুজু হ’ল’ (ছোয়াদ ৩৮/৩৪)। এ বিষয়ে Continue reading “সিংহাসনের উপরে একটি নিষ্প্রাণ দেহ প্রাপ্তির ঘটনা ও ইনশাআল্লাহ’ না বলার ফল”

দাঊদের (আ: ) বীরত্বের কাহিনী

সাগরডুবি থেকে নাজাত পেয়ে মূসা ও হারূণ (আঃ) যখন বনু ইস্রাঈলদের নিয়ে শামে এলেন এবং শান্তিতে বসবাস করতে থাকলেন, তখন আল্লাহ তাদেরকে তাদের পিতৃভূমি ফিলিস্তীনে ফিরে যাবার আদেশ দিলেন এবং ফিলিস্তীন Continue reading “দাঊদের (আ: ) বীরত্বের কাহিনী”

রাসূল (সা.) বলেন সৎ ও অসৎ বন্ধুর উদাহরণ আতর বিক্রেতা ও কামারের ন্যায়

দ্বীনি ভাইদের সাথে যেখানেই দেখা হয় প্রায় সবারই কাছে কোন না কোন আতর থাকে। অনেকে আবার নতুন কেনা আতর বের করে বলে, ভাই এটা কিনলাম, নতুন ফ্রেভার, দেখেন তো কেমন! এভাবে ওর থেকে একটু, ওর থেকে একটু লাগাতে লাগাতে চারদিক সুগন্ধময় হয়ে উঠে। গতকাল কাপড় ধোয়ার জন্য কাপড়গুলো বালতিতে নিচ্ছিলাম। প্রতিটি কাপড় রাখার আগে শুঁকে দেখছিলাম কোনটা ধুতে হবে। প্রতিটা কাপড় থেকেই অদ্ভুত সুন্দর সুগন্ধ বেরোচ্ছিলো। আমার ভাইদের নানান পদের আতরের মিশ্রণের সুগন্ধ। পক্ষান্তরে জাহিল ছেলেগুলোর কথা চিন্তা করুন। কারো গায়ে সিগারেটের গন্ধ, গাঁজার গন্ধ আরো কত কি! আর ঠিক এভাবেই বন্ধুত্বকে উপমা দিয়ে বুঝিয়েছেন আমাদের প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। তিনি বলেন.আবু মুসা আশআরি (রাঃ) থেকে বর্ণিত হাদিসে রাসূল (সা.) বলেন, ‘সৎ ও অসৎ বন্ধুর উদাহরণ আতর বিক্রেতা ও কামারের ন্যায়। আতর বিক্রেতা হয়তো তোমাকে একটু আতর লাগিয়ে দেবে, অথবা তুমি তার কাছ থেকে আতর ক্রয় করবে, অথবা তুমি তার কাছে আতরের ঘ্রাণ পাবে। আর কামার হয়তো তোমার কাপড় পুড়িয়ে দেবে নয়তো তার কাছ থেকে খারাপ গন্ধ পাবে।’(বোখারি ও মুসলিম)শাইখ আব্দুর রহমান আরিফী (হাফিযাহুল্লাহ) একবার উনার এক লেকচারে একটা ঘটনা বলেছিলেন। হাসান আল বাসরী (রহিমাহুল্লাহ) বলেছেন, তোমরা পৃথিবীতে ভাল মানুষদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রাখতে তৎপর হও, কারন এই সম্পর্কের কারণে হয়ত তোমরা আখিরাতে উপকৃত হতে পারবে।তাঁকে জিজ্ঞেস করা হলো কিভাবে?তিনি বললেন যখন জান্নাতিরা জান্নাতে অধিষ্ঠিত হয়ে যাবে তখন তারা পৃথিবীর ঘটনা স্মরণ করবে এবং তাদের পৃথিবীর বন্ধুদের কথা মনে পড়ে যাবে। তারা বলবে, আমি তো আমার সেই বন্ধুকে জান্নাতে দেখছিনা, কি করেছিল সে?

তখন বলা হবে, সেতো জাহান্নামে।তখন সেই মু’মিন ব্যাক্তি আল্লাহর কাছে বলবেন, হে আল্লাহ, আমার বন্ধুকে ছাড়া আমার কাছে জান্নাতের আনন্দ পরিপূর্ণ হচ্ছেনা।অতঃপর আল্লাহ সুবহানু ওয়া তাআলা আদেশ করবেন অমুক ব্যাক্তিকে জাহান্নাম থেকে বের করে জান্নাতে প্রবেশ করাতে।তার বন্ধু জাহান্নাম থেকে রক্ষা পেল এই কারনে নয় যে সে তাহাজ্জুদ পড়ত, বা কুরআন পড়ত বা সাদাকাহ করত বা রোজা রাখত, বরং সে মুক্তি পেল কেবলই এই কারণে যে তার বন্ধু তার কথা স্মরণ করেছে। তার জান্নাতী বন্ধুর সম্মানের খাতিরে তাকে জাহান্নাম থেকে মুক্তি দেয়া হল।জাহান্নামিরা তখন অত্যন্ত অবাক হয়ে জানতে চাইবে কি কারনে তাকে জাহান্নাম থেকে মুক্তি দেয়া হল, তার বাবা কি শহিদ? তার ভাই কি শহিদ? তার জন্য কি কোন ফেরেশতা বা নবী শাফায়াৎ করেছেন?বলা হবে না, বরং তার বন্ধু জান্নাতে তার জন্য আল্লাহর কাছে অনুরোধ করেছে।এই কথা শুনে জাহান্নামিরা আফসোস করে বলবে হায় আজ আমাদের জন্য কোন শাফায়াৎকারি নেই এবং আমাদের কোন সত্যিকারের বন্ধু নেই, যার উল্লেখ আছে এই আয়াতগুলোতেঃ”অতএব আমাদের কোন সুপারিশকারী নেই।এবং কোন সহৃদয় বন্ধু ও নেই।” (২৬: ১০০-১০১)
একজন আলিম আল্লাহর রহমতের কথা বলতে গিয়ে প্রথমেই বলেছিলেন ঈমানের কথা, এরপরই তিনি বলেছিলেন ইসলামী ভ্রাতৃত্বের কথা। তাই কাউকে আল্লাহর জন্য ভালোবাসতে পারা, আল্লাহর জন্য এক হতে পারাটা আল্লাহর অসংখ্য নিয়ামতের একটি। আল্লাহ্‌ আমাদের তৌফিক দান করুন। আমীন