মজার জোকস এই বার জাবি কৈ

ডাক্তারঃ ভয়ের কিছু নেই। চট করে করে আপনার দাঁতটা তুলে নিব।
রোগীঃ না না ডাক্তার সাহেব, আমার ভয় করছে। প্লিজ ডাক্তার সাহেব, আমি জন্ত্রনায় মারাই যাব, বড্ড ভয় করছে।
ডাক্তারঃ ঠিক আছে, আপনি খানিকটা ক্যান্ডি খেয়ে নিন। দেখবেন সাহস বেড়ে গেছে।
রোগীঃ ক্যান্ডি খেয়ে নিলো।
ডাক্তারঃ কি এখন সাহস বেড়েছে তো?
রোগীঃ নিশ্চয়ই বেড়েছে, এখন দেখি কোন শালা আমার দাঁত তুলতে আসে? দাতে হাত লাগাবেন তো এক ঘুষিতে নাক ফাটিয়ে দেবো !!

next jokes
কেউ একজন চিৎকার করে বলছে: ‘এই যে ভাই, কেউ আছেন? একটু ধাক্কা দেবেন?
চিৎকার শুনে ঘুম ভেঙে গেল মিসেস মলির।
মলি তাঁর স্বামী রহিতকে ধাক্কা দিয়ে বললেন: ‘এই যে, শুনছো, কে যেন খুব বিপদে পড়েছে!’
ঘুমাতুর কণ্ঠে বললেন রহিত, ‘আহ্! ঘুমাও তো! লোকটার কণ্ঠ শুনে মাতাল মনে হচ্ছে।
অভিমানের সুরে বললেন মলি, ‘মনে আছে সেই রাতের কথা?
সেদিন তোমার কণ্ঠও মাতালের মতোই শোনাচ্ছিল।
রহিত বললেন, ‘মনে আছে। সে রাতেও প্রচণ্ড বৃষ্টি হচ্ছিল। তোমার খুব শরীর খারাপ করেছিল।
গাড়িতে করে তোমাকে নিয়ে হাসপাতালে যাচ্ছিলাম।
হঠাৎ গাড়ি বন্ধ হয়ে গেল।
সেদিন আমিও চিৎকার করেছিলাম, কেউ আছেন? একটু ধাক্কা দিয়ে দেবেন?’
মলি বললেন, ‘মনে আছে তাহলে।
সেদিন যদি তোমার চিৎকার শুনে একটা লোকও এগিয়ে না আসত, কী হতো বলো তো?
আজ অন্যের বিপদে তুমি যাবে না? প্লিজ, একটু গিয়ে দেখো না!’
অগত্যা উঠতে হলো রহিতকে।
ভিজে চুপচুপ হয়ে কাদা-জল মাড়িয়ে এগিয়ে চললেন তিনি শব্দের উৎস লক্ষ্য করে।
বললেন, ‘কোথায় ভাই আপনি?
শুনতে পেলেন, ‘এই তো, এদিকে। বাগানের দিকে আসুন।’
রহিত এগোলেন।
আবারও শুনতে পেলেন, ‘হ্যাঁ হ্যাঁ… ডানে আসুন। নিম গাছটার পেছনে…।’
রহিত আরও এগোলেন।
আহ্! ধন্যবাদ! আপনার ভাই দয়ার শরীর।
কতক্ষণ ধরে দোলনায় বসে আছি ধাক্কা দেওয়ার মতো কাউকে পাচ্ছি না! বলল মাতাল!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *