নবীজি ১২ বছর বয়সে চাচার সাথে বাণিজ্যে সময় যে গাছের নিচে বসেছিল তা আজও জীবিত(ভিডিও)

নবীজি ১২ বছর বয়সে চাচার সাথে বাণিজ্যে সময় যে গাছের নিচে বসেছিল তা আজও জীবিত(ভিডিও) ভিডিওটি একদম নিচে , আজ থেকে প্রায় ১৪৫০ বছর আগের ঘটনা এটি। আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর বয়স যখন ১২ বছর ছিল তখন এই গাছটি তাঁকে আল্লাহ তা’আলার ইশারায় নিরাপদ আশ্রয় দান করেছিল। আজও সেই গাছটি বেঁচে আছে। সুবাহানাল্লাহ। এই গাছটি “একমাত্র জীবিত সাহাবী গাছ” হিসাবে পরিচিত!! গাছটি জর্ডানের এক মরুভূমী এলাকায় অবস্থিত। আরেকটি অবাক করার মত ব্যপার হল গাছটির শত বর্গ কিলোমিটার এলাকায় এটি ছাড়া আর কোনো গাছ নেই। এই গাছটির নিচে কখনো কেহ বসতে পারেনি! তখন গাছটিতে কোন পাতা ছিলনা! নবী করিম (সাঃ) ছেলেবেলায় ওঁনার চাচার সাথে জর্ডানে যান এবং পথ চলতে চলতে এই গাছটির নিচে বসেন।

বসার সাথে সাথে গাছটিতে পাতা বাহির হয়। সুবাহানাল্লাহ। দূরে জারজিস ওরফে বুহাইরা নামের একজন খৃষ্টান পণ্ডিত থাকতেন তিনি নবীজির চাচার কাছে এসে বললেন আমি এতদিন এখানে আছি কেহ এই গাছের নিচে বসতে পারেনি এবং এই গাছের কোন পাতা ছিল না। খৃষ্টান পন্ডিত জিজ্ঞেস করলেনঃ- এই ছেলেটির নাম কি ? চাচা বললেন মোহাম্মদ! আবার জিজ্ঞস করলেনঃ- বাবার নাম কি ? আব্দুল্লাহ ! মাতার নাম ? আমিনা ! বালক মুহাম্মাদ (সা) কে দেখে, তার সাথে কথা বলে দূরদৃষ্টি সম্পন্ন পাদ্রীর চিনতে আর বাকী রইলো না যে এই সে বহু প্রতিক্ষীত শেষ নবী, ইতিহাসের গতি পরিবর্তকারী, আরবসহ সমগ্র পৃথিবী থেকে পৌত্তলিকতার বিনাশকারী, একত্ববাদকে শক্ত ভিতের উপর প্রতিষ্ঠাকারী। সাথে সাথে খৃষ্টান পন্ডিত বললেন আমি পড়েছি ইনি হলেন ইসলাম ধর্মের শেষ নবী। আল্লাহ তা’আলা পবিত্র কুর’আনে বলেনঃ- “তুমি কি লক্ষ কর না আল্লাহ কিভাবে উপমা দিয়ে থাকেন? সৎ বাক্যের তুলনা উৎকৃষ্ট বৃক্ষ যাহার মূল সুদৃড় ও যাহার শাখা-প্রশাখা ঊর্ধে বিস্তৃত। যে প্রত্যেক মৌসুমে তার ফল দান করে তাহার প্রতিপালকের অনুমতিক্রমে এবং আল্লাহ মানুষের জন্য উপমা দিয়ে থাকেন যাহাতে তাহারা শিক্ষা গ্রহণ করে”ভিডিওটি ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *