একজন নারী অন্য নারীর যেসব অঙ্গ দেখতে পারবে না!

নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলামবিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় বেসরকারি একটি টেলিভিশনের জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানে দর্শকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ। প্রশ্ন: রক্তের সম্পর্ক ছাড়া একজন নারীর অন্য আরেকজন নারীর সামনে সর্বোচ্চ কতটুকু অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বের করে রাখা উত্তম?

উত্তর: যে অঙ্গপ্রত্যঙ্গগুলো খোলা একান্ত প্রয়োজন, না খুললেই নয়, সেগুলো খুলে রাখা উত্তম। এখানে দুটি মাসআলা। একটি হচ্ছে উত্তমের মাসআলা, অন্যটি হচ্ছে বৈধতার মাসআলা। আপনি যেহেতু উত্তমের মাসআলা জানতে চেয়েছেন, সে ক্ষেত্রে উত্তম হচ্ছে, নিজের সৌন্দর্যকে যথাসম্ভব ঢেকে রাখা। কারণ আপনি যখন অন্য নারীর সামনে আপনার সৌন্দর্য প্রকাশ করবেন, তখন হয়তো অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে ওই নারী আপনার সৌন্দর্যের বিষয়টি অন্য কারো কাছে, যেমন হয়তো তাঁর স্বামী বা অন্য কোনো নিকটাত্মীয়ের কাছে প্রকাশ করে দিতে পারেন। এ ছাড়া অন্য অনেক ক্ষতিও হতে পারে। এ জন্য সেটি না করাটাই উত্তম। নারীদের সামনে নারীর স্বাভাবিক সতর হচ্ছে, তাঁরা নিজেদের লজ্জাস্থান, বুক এবং পিঠ সম্পূর্ণরূপে ঢেকে রাখবেন। এগুলো ছাড়া অন্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গ তাঁরা প্রকাশ করতে পারবেন, এতে কোনো গুনাহ হবে না। এই মাসআলাটি হচ্ছে জায়েজের মাসআলা। রক্তের সম্পর্ক হোক বা না হোক, নারীরা সবাই এই বিধানের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত। এ ক্ষেত্রে যিনি সতর্কতা অবলম্বন করলেন, তিনিই উত্তম কাজটি করলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *